ভ্রমণের টুকিটাকি প্রয়োজনীয় তথ্য

কী কী নেওয়া দরকার
১) পাসপোর্ট, ট্র্যাভেল ভিসা, ফ্লাইটে-এর টিকিট ও ভ্রমণ সম্পর্কীয় যাবতীয় কাগজপত্র নকলসমেত হাতের কাছে রাখতে হবে। আসল এবং নকল— সব রকম কাগজই আলাদা করে রাখা উচিত হবে।
২) আন্তর্জাতিক ড্রাইভিং লাইসেন্স সঙ্গে রাখতে হবে। এর জন্য অটোমোবাইল এ্যাসোসিয়েশন-এর মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। বিকল্প হিসেবে নিজস্ব ড্রাইভিং লাইসেন্সটি কাছে রাখা ভাল। লাইসেন্সটিতে ছবি থাকায় পরিচয়পত্রের কাজ দেবে।
৩) একটি কাগজে ব্লাড গ্রুপ, এ্যালার্জি ও বিশেষ শারীরীক অবস্থা অথবা পুরোন অসুখ সম্পর্কে তথ্য লিখে কাছে রাখা খুব দরকার। এর সঙ্গে রাখতে হবে নিজস্ব চিকিৎসকের নাম ও ঠিকানা এবং ফোন নম্বর।
৪) অতিরিক্ত এক জোড়া চশমা নেওয়া ভাল। সঙ্গে নেওয়া ওষুধপত্রের একটি তালিকা হ্যাণ্ডব্যাগে রেখে দেওয়া জরুরি।

কী কী রেখে যাবেন
১) পাসপোর্ট, ট্র্যাভেল ভিসা, ফ্লাইটে-এর টিকিট ও ভ্রমণ সম্পর্কীয় যাবতীয় কাগজপত্র নকল এবং ক্রেডিট কার্ড-এর স্টেটমেন্ট-এর সাম্প্রতিক কপি।
২) ভ্রমণের সূচী ও দরকারি ফোন নম্বর।
৩) ট্র্যাভেলার্স চেক-এর সিরিয়াল নম্বর সমুহ ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাবলী।

নির্ঝঞ্ঝাট ভ্রমণের টিপ্‌স
১) পাসপোর্ট-এর এক্সপায়ারি ডেট দেখে নিতে হবে।
২) প্রতিটি ট্র্যাভেলার্স চেক-এর ওপরের বা কোণে নিজের নাম সই করে রাখলে হারিয়ে গেলে অথবা চুরি হলে ক্ষতি নেই।
৩) প্রতিটি লাগেজ-এর ভেতরে নিজের নাম, ঠিকান ও ফোন নম্বর লেখা লেবেল সেটে রাখা উচিত হবে।
৪) যাওয়ার আগে সঙ্গে নেওয়া দামী জিনিসপত্র কাস্টম্‌স-এ রেজিস্টার করে রাখা ভাল। ফেরার পথে অযথা আমদানি শুল্ক দেওয়ার হাত থেকে এতে রেহাই পাওয়া যাবে।
৫) আরামদায়ক সাধারণ পোষাকে ভ্রমণ করাই ভাল। এতে অহেতুক দৃষ্টি আকর্ষণ করার বিপদ এড়ানো যায়।

যে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে
১) মালপত্র ছেড়ে দূরে কোথাও না যাওয়াই ভাল।
২) হালকা মালের প্রতি সজাগ থাকুন, বিশেষত সিকিওরিটি তল্লাসির সময়।
৩) মুদ্রা বিনিময় করার সময় একবারে মোটা টাকর চেয়ে বারে বারে অল্প পরিমান বিনিময় করাই ভাল।
৪) যাত্রা শুরু করার সময় মালপত্রের একটি তালিকা তৈরি করে কাছে রাখতে হবে।

সূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা, ১ ডিসেম্বর ২০০৮

Sending
User Review
0 (0 votes)

Add Comment