পর্যটন করপোরেশনের আয়োজন
ইমাম হাসান

পর্যটন করপোরেশনের মোটেল দেশজুড়ে পর্যটকদের বিভিন্ন সুবিধা দিতে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের আছে নানা আয়োজন। এলাকা অনুযায়ী তাদের সুবিধাগুলো দেওয়া হলো এখানে।

ঢাকা
ঢাকা শহরে তাদের আবাসিক হোটেল হলো হোটেল অবকাশ। এর পাশেই মালঞ্চ রেস্টুরেন্ট।
এখানে পাবেন ডিলাক্স এসি রুম, টেলিফোন, ইন্টারনেট, টেলিভিশন, লন্ড্রি ইত্যাদি সুবিধা। ভাড়া এক হাজার ৮০০ থেকে দুই হাজার ৬০০ টাকা। এ ছাড়া কনফারেন্স হল ভাড়া চার হাজার ৬০০ থেকে সাত হাজার টাকা।
ফোন: ৮৮১১১০৯, ৯৮৯৯২৮৮, ৯৮৯৯২৯০। ই-মেইল: [email protected]

চট্টগ্রাম
মোটেল সৈকত।
এসিও নন-এসি দুই ধরনের রুমই পাওয়া যাবে এখানে। ভাড়া ৮০০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা।
ফোন: ৩১৬১১০৪৬।

কক্সবাজার
হোটেল শৈবাল
এখানে ঘরভাড়া এক হাজার ৩০০ থেকে তিন হাজার ৮০০ টাকা, কনফারেন্স হল ভাড়া সাত হাজার টাকা। আরও আছে কটেজ। ভাড়া পড়বে চার হাজার টাকা। ফোন: ৩৪১৬৩২৭৪।

মোটেল উপল
বিমান অফিস, গাড়ি পার্কিংসহ এসি ও নন-এসি রুম। ভাড়া নন-এসি টুইন রুম এক হাজার ২০০ থেকে এক হাজার ৮০০ টাকা, ডরমিটরি প্রতি বেড ৩০০ টাকা। ফোন: ৩৪১৬৪২৫৮।

মোটেল প্রবাল
বিভিন্ন ঘরসহ আছে ৮০ জনের খাবার রেস্টুরেন্ট। ভাড়া ৪০০ থেকে এক হাজার ৭০০ টাকা। এ ছাড়া দল বেঁধে থাকতে পারেন ডরমিটরিতে। ভাড়া ২০ জন দুই হাজার ৪০০, ৩০ জন তিন হাজার ৬০০, ৫০ বা তার অধিক হলে পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা। ফোন: ৩৪১৬৩২১১।

এ ছাড়া যোগাযোগ করতে পারেন
হোটেল লাবণী
ফোন: ৮৮০৩৪১৬৪৭০৩ নম্বরে।

রাঙামাটি পর্যটন মোটেল
ভাড়া ৯০০ থেকে এক হাজার ৯০০ টাকা। কটেজ ভাড়া দুই হাজার ৫০০ থেকে পাঁচ হাজার টাকা। যোগাযোগ: ৩৫১৬৩১২৬।

রাজশাহী পর্যটন মোটেল
নন-এসি টুইন এক হাজার, এসি সিঙ্গেল এক হাজার ৩০০, এসি স্যুট দুই হাজার ৫০০, ইকোনমি ২০০ টাকা। ফোন: ৮৮০৭২১।

বগুড়া পর্যটন মোটেল
করতোয়া রেস্টুরেন্টসহ এখানে রয়েছে নন-এসিও এসি রুম, কনফারেন্স রুম ইত্যাদি। ভাড়া এক হাজার থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা, ড্রাইভার বেড ১৫০ টাকা, কনফারেন্স হল আকারভেদে দুই হাজার ৫০০ থেকে ছয় হাজার টাকা পর্যন্ত। ফোন: ৫১৬৭০২৪-৭।

কুয়াকাটা পর্যটন হলিডে হোমস
ভাড়া ৬০০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা। যোগাযোগ: ৪২৮৫৬০০৪।

মংলা, হোটেল পশুর
ভাড়া ৮০০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা। আছে ৫০ জনের খাবারের ব্যবস্থাসহ রয়েল বেঙ্গল রেস্তোরাঁ। ফোন: ৪৬৬২৭৫১০০।

দিনাজপুর: পর্যটন মোটেল। এসি টুইন ডিলাক্স এক হাজার ৮০০ টাকা, ইকোনমি রুম ১৫০ টাকা। আছে খাবার রেস্টুরেন্ট। ফোন: ৫৩১৬৪৭১৮।

সিলেট পর্যটন মোটেল
এসি টুইন এক হাজার ৮০০, নন-এসি টুইন এক হাজার ১০০ও কনফারেন্স হল সাত হাজার টাকা সারা দিন। ফোন: ৮২১৭১২৪২৬।

বেনাপোল পর্যটন মোটেল
রেস্টুরেন্ট সুবিধাসহ আছে এসিও নন-এসি রুম। ভাড়া ৬০০ থেকে দুই হাজার টাকা। ডরমিটরি ১৫০ টাকা। যোগাযোগ: ৪২২৭৫৪১১।

টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ), হোটেল মধুমিতা
ভাড়া ৬০০ থেকে এক হাজার টাকা, ডরমিটরি ১৫০ টাকা। ফোন: ৬৬৫৫৫৬৩৪৯।

বান্দরবান পর্যটন মোটেল
ভাড়া ২০০ থেকে তিন হাজার ৭৫০ টাকা; আছে কনফারেন্স হল। যোগাযোগ: ৩৬১৬২৭৪১-২।

খাগড়াছড়ি পর্যটন মোটেল
ভাড়া ৩০০ থেকে দুই হাজার ৫০০ টাকা। রেস্টুরেন্ট সুবিধা আছে ৫০ জনের। ফোন: ৩৭১৬২০৮৪-৫।

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের ওয়েবসাইট:
www.parjatan.gov.bd

বেড়ানোর ব্যবস্থায়
ফেরদৌস ফয়সাল

জাফলং, সিলেট। বেড়াতে গিয়ে নিজেই থাকা-খাওয়ার জায়গা ঠিক করার ঝামেলায় অনেকে যেতে চান না। আবার সুন্দরবনসহ এমন অনেক জায়গা আছে, যেখানে নিজেদের ব্যবস্থায় যাওয়াটা ঝুঁকিপূর্ণ। সে ক্ষেত্রে সাহায্য নিতে পারেন ট্যুর অপারেটরদের। জেনে নিন তাদের নানা সুবিধা সম্পর্কে।

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন
তাদের প্যাকেজ হলো: ১. ঢাকা-বান্দরবান-ঢাকা, ৩ দিন ২ রাত। ২. ঢাকা-মৌলভীবাজার-সিলেট-ঢাকা, ৩ দিন ২ রাত। ৩. ঢাকা-মহাস্থানগড়-পাহাড়পুর-বগুড়া-ঢাকা ২ রাত ৩ দিন। ৪. ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা ২ রাত ৩ দিন। ফোন: ৯৮৬২৪৩৫; ওয়েব: www.parjatan.gov.bd।

দ্য বেঙ্গল ট্যুরস লিমিটেড
এ প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মতিউর রহমান জানালেন: ১. ঢাকা-সুন্দরবন-ঢাকা, ৩ রাত ৪ দিন, ১০ হাজার ৫০০ টাকা। ২. ঢাকা-বগুড়া-রাজশাহী-ঢাকা, ২ রাত ৩ দিন,। ৩. ঢাকা-সিলেট-শ্রীমঙ্গল-ঢাকা, ২ রাত ৩ দিন। ৪. ঢাকা-কক্সবাজার-টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন-ঢাকা, ৩ রাত ৪ দিন প্যাকেজ আছে। ফোন: ৮৮৫৭৪২৪ ওয়েব: www.bengaltours.com

দ্য গাইড ট্যুরস লিমিটেড
এ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাসান মনসুর জানালেন: ১. ঢাকা-বান্দরবান-ঢাকা, কটেজে বাঁশের ঘরে ১০ হাজার ৫০০ টাকা। ২. ঢাকা-সুন্দরবন-ঢাকা, ৪ দিন ৩ রাত, ১৩ হাজার ৩০০ ঢাকা। ঢাকা-শ্রীমঙ্গল-ঢাকা ২ রাত ৩ দিন, ১৩ হাজার ৫০০ টাকা। আরও আছে শীতলক্ষ্যা নদীতে নৌবিহার, জনপ্রতি ৪ হাজার ৫০০ টাকা। ফোন: ৯৮৬২২০৫; ওয়েব: www.guidetour.com।

রিভার অ্যান্ড গ্রিন ট্যুরস
ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা, ঢাকা-সেন্ট মার্টিন-ঢাকা, ঢাকা-সুন্দরবন-ঢাকা, ঢাকা-সিলেট-ঢাকা ইত্যাদি। ফোন: ৮৮২৭৮৭৯, ওয়েব: www.riverandgreen.com

জার্নি প্লাস
ঢাকা-রাঙামাটি-বান্দরবান-ঢাকা, ৩ রাত ৩ দিন। ৭ হাজার ৫০০ টাকা। ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা, ৩ দিন ২ রাত খরচ ৬ হাজার ৫০০ টাকা ইত্যাদি।
ফোন: ০১৮১৯২২৭৯০১, ওয়েব: www.journeyplus.com

সুন্দরবন টুরস অ্যান্ড রিসোর্ট
ঢাকা-সুন্দরবন-ঢাকা, ঢাকা-কুয়াকাটা-সুন্দরবন-ঢাকা, ঢাকা-কক্সবাজার-সীতাকুণ্ড-ঢাকা ইত্যাদি প্যাজ আছে। ফোন: ০১৭১১২৬৬৪৮২, ওয়েব: bangladeshsundarbantours.com/about.html

অবকাশ পর্যটন লিমিটেড
ঢাকা-সেন্ট মার্টিন ঢাকা, ঢাকা-নিঝুমদ্বীপ-ঢাকা, ঢাকা-সুন্দরবন- ঢাকা, ঢাকা-কুয়াকাটা-ঢাকা ইত্যাদি। ফোন: ০১৭১১১৭৩৪৩৪,
ওয়েব: www.abakashparjatan.com

ইনসাইটা ট্যুরিজম
ঢাকা, কক্সবাজার, বান্দরবান ঘুরে আসার পাশাপাশি রোমাঞ্চকর ট্যুরের সুযোগ দিচ্ছে ইনসাইটা ট্যুরিজম। বান্দরবানের কেওক্রাডং, নাফাখুম, শ্রীমঙ্গলের হামহাম ঝরনা, সুন্দরবনে ২ রাত ২ দিন থেকে ৫ রাত ৪ দিন থাকার সুযোগ পাওয়া যাবে বিভিন্ন প্যাকেজে। ওয়েব: ww.incitaa.com

সান অ্যান্ড সি
ঢাকা থেকে কক্সবাজার, সেন্ট মার্টিন, টেকনাফ-সেন্ট মার্টিনে বেশ কয়েকটি প্যাকেজ আছে। ঢাকা-সুন্দরবন-ঢাকা প্যাকেজও আছে। ওয়েব: www.sunandseabd.com

বিলাসী বেড়ানো

নাজিমগড় রিসোর্ট শহরের কোলাহল ছেড়ে বেড়িয়ে আসতে পারেন কোনো একটি রিসোর্টে। এসব জায়গায় পাবেন সব ধরনের আরামদায়ক সুবিধা আবার প্রকৃতির কাছে থাকার প্রশান্তি। দেখুন দেশের নানা স্থানের কয়েকটি রিসোর্টের খোঁজ

মারমেইড ইকো রিসোর্ট প্যাঁচার দ্বীপ, কক্সবাজার
হিমছড়ি আর ইনানী বিচের মাঝামাঝি প্যাঁচার দ্বীপে এর অবস্থান। রোমাঞ্চপ্রিয়রা কক্সবাজার থেকে সাগর ধরে হেঁটে গেলে ঘণ্টা দুইয়ের মধ্যে পৌঁছে যাবেন। সিএনজিতেও যাওয়া যায়। পানির ওপর বাঁশের কুঁড়েতে থাকার ব্যবস্থা আছে। দুপুর বা রাতে সি-ফুড, ইউরোপীয়, ক্যারিবীয় ওদেশি খাবার পাবেন। যোগাযোগ: ০১৮৪১৪১৬৪৬৪-৯
ওয়েব: www.mermaidecoresort.com

নাজিমগড় রিসোর্ট
সিলেট শহরপ্রান্তে পাহাড়ের পাদদেশে ছয় একর জায়গা নিয়েবেসরকারি মালিকানাধীন নাজিমগড় রিসোর্ট গড়ে উঠেছে। রিসোর্টের অতিথিদের জন্য আশপাশে বেড়ানোর ব্যবস্থাও আছে। বেশ কয়েকটি রেস্তোঁরা আছে এখানে যাতে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের খাবার পাবেন। ফোন: ০১৭৩০৭১২৬০০
ওয়েব: www.nazimgarh.com

হিল সাইড রিসোর্ট
বান্দরবান জেলা থেকে চার কিমি দূরে চিম্বুক সড়কে মিলনছড়িতে আছে হিল সাইড রিসোর্ট। এখানে থাকার জন্য রয়েছেবেশ কয়েকটি মনোরম কটেজ ঘর ও ডরমিটরি। রয়েছে বম ঘর, মারমা ঘর, বাঁশের তৈরি ঘর। ফোন: ৯৮৬২২০৫
ওয়েব: www.guidetour.com

যমুনা রিসোর্ট
বঙ্গবন্ধু যমুনা বহুমুখী সেতুর কাছেযমুনা নদীরকোলঘেঁষে পূর্ব পাশে এই রিসোর্ট। রুমসংখ্যা ১১০। রিসোটের্র ভেতরে রেস্টুরেন্টের ধারণক্ষমতা ১৫০ জন। ফোন: ০১৭১৪৪০৪৯০২
ওয়েব: www.jamunaresort.com

পদ্মা রিসোর্ট
মুন্সিগঞ্জ জেলারলৌহজং থানায় পদ্মা নদীর চরে এই রিসোর্ট। ২৫টি ঘর রয়েছে। ১৫৫ জন ধারণক্ষমতার একটি রেস্তোরাঁও রয়েছে। বনভোজন বা পার্টিতে আয়োজকেরা চাইলে নিজেরাই রান্না করতে পারেন। ফোন ০১৭১২১৭০৩৩০
ওয়েব: www.padmaresort.net

ফয়’স লেক রিসোর্ট
চট্টগ্রামে ফয়’স লেকের ভেতরে রয়েছে কনকর্ডের তৈরি এই রিসোর্ট। ২০ মিনিটের হ্রদযাত্রা শেষে পৌঁছাবেন এই রিসোর্টে। এর পাশে রয়েছে ওয়াটার পার্ক। ফোন: ০১৯১৩৫৩১৪৮৩
ওয়েব: www.fantasy-kingdom.net.bd

অবকাশ পর্যটন লিমিটেডের রিসোর্ট
সেন্টমার্টিন দ্বীপে সেন্টমার্টিন রিসোর্ট, নিঝুম দ্বীপে নিঝুম রিসোর্ট এবং কক্সবাজারের রামুতে তাদের তৈরি রিসোর্ট রয়েছে। ফোন: ৮৩৫৮৪৮৫
ওয়েব: www.abakashparjatan.com

অরুনিমা
নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার মধুমতীর তীরে পানিপাড়া গ্রামে গড়ে উঠেছে অরুনিমা কান্ট্রিসাইড রিসোর্ট। হ্রদে বেড়ানোর জন্য রয়েছে ছোট-বড় ডিঙ্গি। ফোন: ০১৭১৬৪৩১২১০
ওয়েব: www.arunimacountryside.com

এলেঙ্গা রিসোর্ট
টাঙ্গাইল শহরথেকে সাত কিলোমিটার উত্তরে এলেঙ্গায় গড়ে উঠেছে এই রিসোর্ট। আছেরেস্তোরাঁসহ নানা আধুনিক সুযোগ-সুবিধা।নৌ-ভ্রমণের জন্য রয়েছে ট্রলার,দেশি নৌকা ও স্পিড বোট।
ফোন: ০১৭১৩ ৩৮১০২৬
ই-মেইল: [email protected]

নক্ষত্রবাড়ি
অভিনেতা ও নির্মাতা তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রাজাবাড়ি এলাকায় গড়ে তুলেছেন এই রিসোর্ট। প্রায় ১০ বিঘা জমির ওপর ‘নক্ষত্রবাড়ি’। বিশাল দীঘি, দীঘিতে শানবাঁধানো ঘাট, কৃত্রিম ঝরনা, সুইমিং পুল, দোলনা, শালবন সবই আছে এখানে। ফোন: ০১৮১৮৪৪৮৩২৯
ওয়েব: www.nokkhottobari.com.bd

শ্রীমঙ্গলের টি রিসোর্ট
শ্রীমঙ্গল শহরথেকে চার কিমি দূরত্বে কমলগঞ্জ রোডে বাংলাদেশ টিবোর্ডের টি রিসোর্ট অবস্থিত। মূলত পুরোনো একটি ব্রিটিশ বাংলোকে রিসোর্টে রূপান্তরিত করা হয়েছে। রয়েছেটেনিসকোর্ট।
ফোন: ০১৭১২০৭১৫০২

রয়েল রিসোর্ট ধনবাড়ী, টাঙ্গাইল
জমিদারবাড়িতে থাকতে চাইলেযেতে পারেন রয়েল রিসোর্টে। এটি আসলে নবাব নওয়াব আলীর প্রাসাদ। ঢাকাথেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় যেতে হবে। তারপর টাঙ্গাইল-জামালপুর সড়কে ৫০ কিলোমিটার এগোলে রয়েল রিসোর্টে। ফোন: ০১৭৪৯৪১৯৯৪০

পাকশী রিসোর্ট (ঈশ্বরদী, পাবনা)
যমুনাসেতু থেকে এক ঘণ্টার পথ পাকশী রিসোর্ট। পদ্মা নদীর পাড়ে ৩৬ বিঘা জমির ওপর এই রিসোর্ট। পাবনা, কুষ্টিয়া ও নাটোর শহরথেকে রিসোর্ট আধঘণ্টার পথ। ফোন: ০১৭৩০৭০৬২৫১
ওয়েব: www.pakshiresort.net

সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১২